পড়া মুখস্থ করার সহজ উপায় : Great way to Memorize Reading

0 1,272

পড়া মুখস্থ করার সহজ উপায় : আজকের এই পোস্টে দ্রুত পড়া মুখস্থ করার সহজ উপায় নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। আপনাকে শুরু করতে সাহায্য করার জন্য এখানে কিছু টিপস রয়েছে: এখানে ০৭টি সহজ উপায় রয়েছে । এতে আপনি পড়া মুখস্থ করার সহজ উপায় কি এবং কিভাবে সহজে পড়া মুখস্থ করা যায় সে বিষয়ে জানতে পারবেন।

পড়া মুখস্থ করার সহজ উপায়

মাঝে মাঝে পড়া মুখস্থ করা খুব বিরক্তিকর। কখনো পড়া খুব অল্প সময়ে মুখস্থ হয়ে যায়, কখনো পড়া মুখস্ত করতে দেরি হয়ে যায়। কিন্তু এই পড়াটা যদি খুব অল্প সময়ে মুখস্থ হয়ে যায়, তাহলে খুব ভাল হয়। যাইহোক, আজ আমরা পড়া মুখস্থ করার জন্য কিছু দুর্দান্ত কৌশল কি, পড়া মুখস্ত করার নিয়ম কি সে বিষয়ে জানবো।

চাকরিপ্রার্থীদের জন্য় এখানে রয়েছে অসংখ্য চাকরির খবর জানতে এখানে ক্লিক করুন

কখনো কখনো আমরা সামনে বই নিয়ে অনেকক্ষণ বসে থাকি। পড়াটা মুখস্থ করলেও কিছুক্ষণ পর ভুলে যাই। আবার পড়ে আবার ভুলে গেছি। এই পড়া জীবনে কোন কাজে আসে না। পড়া সঠিকভাবে মুখস্থ করার কিছু উপায় আছে। নীচে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে। কিভাবে সঠিক পদ্ধতিতে ( Easy way to memorize reading ) পড়া মুখস্থ করা যায় ।

Take a 5 minute rest after reading for 30 minutes without reading for a long time. Also, get enough sleep to improve your brain function.

Learn how to read fast and memorize reading techniques

পড়া মুখস্ত করার অসাধারণ কিছু কৌশল

ভুলভাবে পড়া মুখস্থ করা
মানুষ পড়া মুখস্থ করে এবং তাদের স্মৃতিতে সংরক্ষণ করে। মানুষের মস্তিষ্কে সব কিছু জমা থাকে। এই স্মৃতি শরীরের কোন অংশ নয়। বরং এটি একটি মানসিক দক্ষতা যা দিনে দিনে উন্নত করা যেতে পারে। অনেকে বলে আমার মনে রাখার ক্ষমতা ভালো না, ভুলে যাই।

আবার অনেকে বলেন, এর মস্তিষ্ক অনেক ভালো। ব্যাপার সেটা না. সে যত বেশি তার মস্তিষ্ক ব্যবহার করবে, সে তত বেশি দক্ষ হবে। যেকোনো কিছু মনে রাখার জন্য আপনাকে বিভিন্ন অভিনব কৌশল উদ্ভাবন করতে হবে।

পড়া বোঝার উপায়

মেমরির কার্যকারিতা সম্পর্কে জানুন
একজন ব্যক্তি গড়ে ৭টি বিষয়ের নাম মনে রাখতে পারেন। যেমন: একটি বোর্ডে পরপর ১০টি শব্দ লিখুন, তারপর আপনি যদি তাদের কাছে সেই শব্দের নাম জানতে চান, তবে তাদের মধ্যে ১ থেকে ৪টি বলতে পারবে ১৬% মানুষ। ৬২% বলতে পারবে ৫-৬ ব্যক্তি, এবং শুধুমাত্র ২২% বলতে পারে ৮ থেকে ১০ জন।

যদি এই পরীক্ষা বেশি করা হয়, অর্থাৎ শব্দের সংখ্যা বাড়ানো হয়, এই সংখ্যা অপরিবর্তিত থাকবে। তাই যে কোনো শব্দকে আমাদের স্মৃতিতে দীর্ঘ সময় ধরে রাখার উপায় খুঁজে বের করতে হবে। আমরা যখন শব্দের ছবি বা ভিডিও দেখি, তখন সেগুলো আমাদের মস্তিষ্কে অনেকক্ষণ থাকে। আর তখন দেখা যায় স্মৃতির এই অনুপাত অনেক বেড়ে যায়।

পড়া মনে রাখার উপায়

কিভাবে পড়া মুখস্থ করতে হয়?
যেকোনো বই মুখস্থ করার সময় বা পড়ার সময় তিনটি ধাপ মাথায় রাখতে হয়। যথা: মুখস্থ করা, স্মৃতিতে ধারণ করা, পুনরায় পড়া। যে কোনো পড়া মুখস্থ করার পর তা স্মৃতিতে জমা হয়। তারপরে আমরা এটি আর মনে করার চেষ্টা করি না, যতক্ষণ না আমাদের আবার এটির প্রয়োজন হয়।

পড়া মুখস্ত করার অসাধারণ কিছু কৌশল
পড়া মুখস্ত করার অসাধারণ কিছু কৌশল /Photo by Thought Catalog

তাহলে আমরা কি করে ভাবি যে মাঝে মাঝে কিছু মনে করার চেষ্টা করব আর মনে হবে ম্যাজিক! যে কোন কিছু একবার পড়লে বারবার মনে রাখতে হয়। উপরের তিনটি পন্থা মেনে চললে পড়া মনে রাখা খুব সহজ হবে।পুরানো স্মৃতি মনে রাখা। আমরা যদি প্রতিদিন উপরের ধাপগুলো মনে রেখে কাজ করতে পারি, তাহলে সহজেই স্মৃতিশক্তির কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পাবে। উদাহরণস্বরূপ, আমরা জানি যে একজন গড় ব্যক্তি প্রতিদিন 8 টি শব্দ মুখস্থ করতে পারে। এবং একদিন পর, আপনি যদি তাদের এই কথাগুলি আবার জিজ্ঞাসা করেন তবে আপনি একটি কথাও বলতে পারবেন না। আর যারা এর চেয়ে বেশি শব্দ মনে রাখতে পারে বা যারা ভুলে যায় না তারা তাদের স্মৃতির সাথে তাদের পড়ার সংযোগ স্থাপন করতে সক্ষম হয়েছে যাতে তারা মনে রাখতে পারে।

দ্রুত পড়া মুখস্থ করার সহজ উপায়

বারবার পড়া মনে করা বা পুনরাবৃত্তি করা
কোন কিছু মনে রাখার সবচেয়ে সহজ উপায় হল বারবার মনে রাখা। যেকোনো কিছু পড়ার পর আবার পড়তে মনে রাখতে হবে। একটি বিষয় পড়ার পরে, আপনাকে এটি সম্পর্কিত অন্যান্য বিষয়গুলি পড়তে হবে। তাহলে কথাটা আমার আরও মনে থাকবে।

যেমন পড়ি ঢাকা বাংলাদেশের রাজধানী। আমি যদি এইমাত্র পড়ি, আমি পড়া শেষ করার কিছুক্ষণ পরেই ভুলে যেতে পারি। এর জন্য আমাকে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা সম্পর্কে আরও কিছু তথ্য জানতে হবে।

পড়া ভুলে যাওয়ার কারণ কি

পড়া ভুলে যাওয়ার কারণ
আমরা যখন কোনো তথ্য পড়ি, স্বাভাবিকভাবেই কিছুক্ষণ পর তা বিবর্ণ হতে শুরু করে। আমরা যদি সেই তথ্য বারবার সংশোধন করি তাহলে আমরা এটি নির্মূল করতে পারি। বারবার রিভিশন এবং মেমরি ব্যবহার আমাদের মেমরির কর্মক্ষমতা বাড়ায়। পড়া মনে রাখা সহজ।

পড়া মনে রাখার বৈজ্ঞানিক উপায়

পড়ার উপর মনোনিবেশ করার উপায় সহ বৈজ্ঞানিক কৌশল।
যাইহোক, কখনও কখনও কিছু তথ্য যা আমরা কম রিভিশন দেই তা এখনও আমাদের জ্ঞানকে শক্তিশালী করতে পারে। এটি খালি পুনরাবৃত্তি। কখনও কখনও আমরা নতুন তথ্য শিখতে অনেক সময় ব্যয় করি কিন্তু তবুও তা আয়ত্ত করা যায় না। আবার কম পরিশ্রমে আমরা পুরানো পড়া মনে রাখতে পারি কিন্তু তা করি না।

পড়া মনে রাখার ৫টি নীতি
যখন আপনি পড়তে ভুলে যাওয়ার সঠিক কারণগুলি জানেন, তখন আপনি দীর্ঘ সময় ধরে যা পড়েছেন তা মনে রাখার উপায় খুঁজে পেতে পারেন। এর ৫টি নীতি রয়েছে।অর্থপূর্ণ শব্দ হতে হবে: কোনো তথ্য অর্থপূর্ণ হলে মুখস্থ করা সহজ হয়। শব্দটি এলোমেলো হলেও এর একটি সহজ অর্থ খুজে নিতে হবে।

সুন্দর বিন্যাস: তথ্য ভাল বিন্যাস করা আবশ্যক. তাহলে মস্তিষ্কে ধারণ করা সহজ হয়। আমরা জানি যে একটি বই খুঁজতে আমাদের লাইব্রেরিতে যেতে হবে এবং অভিধানে একটি শব্দ খুঁজতে হবে। তাই আমরা যখন আমাদের মস্তিষ্কে কোনো তথ্য দেই, তখন সেটিকেও সুন্দরভাবে সাজাতে হয়।

পড়া মনে রাখার সহজ কৌশল কি

একবার আপনি একটি নতুন তথ্য জানলে, আপনাকে পুরানো তথ্যের সাথে লিঙ্ক করতে হবে। নতুন পড়া যাতে আগের পড়ার সাথে মিশে না যায় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। তার জন্য আমাদের নতুন পন্থা অবলম্বন করতে হবে। ছবি বা ভিডিও দেখা: আমরা যেকোনো কিছু পড়তে ও মুখস্থ করার চেয়ে ছবি বা ভিডিও দেখতে পছন্দ করি। এই ভাবে আমাদের মনে আরো আছে।

কম সময়ে বেশি পড়ার উপায়

সবশেষে বলব, দ্রুত পড়া মুখস্থ করার উপায় শুধুমাত্র কিছু কৌশল যা আপনি ব্যবহার করতে পারেন। পরিশেষে বলতে চাই, আমরা যদি উপরের বিষয়গুলো খেয়াল করি, তাহলে আমরা বুঝতে পারব কীভাবে আমাদের বিষয়বস্তুকে আরও ফলপ্রসূ করা যায়। আমাদের স্মৃতিশক্তি বাড়ানো যায়। এবং কিভাবে সহজ উপায়ে পড়া মুখস্থ করা যায়

Leave A Reply

Your email address will not be published.

x

You cannot copy content of this page